ডিলিট করার পরও থেকে যাচ্ছে ইন্সটাগ্রাম মেসেজ!

26

তথ্য ও প্রযুক্তি ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

ডিলিট করার পরও ইন্সটাগ্রামের ডাইরেক্ট মেসেজে থেকে যাচ্ছে যাচ্ছে আদান-প্রদান করা বার্তা ও ছবি। সম্প্রতি ইন্সটাগ্রামের এই ত্রুটির বিষয়টি সামনে আনেন একজন স্বাধীন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ। এই ভুলটি ধরিয়ে দিয়ে জিতে নিয়েছেন ছয় হাজার ডলার।

সওগাত পোখারেল নামের এই বিশেষজ্ঞ জানান, সম্প্রতি তিনি তার ইন্সটাগ্রামের ডাটা ডাউনলোড করেন। সেখানে তিনি ডাইরেক্ট মেসেজে ব্যবহার করে যে সব বার্তা ও ছবি আদান-প্রদান করেছিলেন, তা পেয়ে যান। তিনি অবাক হয়ে দেখেন, দীর্ঘদিন আগে যেসব বার্তা ও ছবি তিনি ডিলিট করে দিয়েছিলেন, তা এখনও পাওয়া যাচ্ছে!

সাধারণত একজন ব্যবহারকারি তার ডাটা ডিলিট করে দিলে তা সোশ্যাল মিডিয়ার নানা রকম সিস্টেম থেকে পুরোপুরি ডিলিট হতে বেশ সময় লাগে। ইন্সটাগ্রামে এই সময়টা ৯০ দিন পর্যন্ত দীর্ঘ হতে পারে। অর্থাৎ ইন্সটাগ্রামে কোনো ব্যক্তি তার ব্যক্তিগত ডাটা ডিলিট করে দেওয়ার পরও ইন্সটাগ্রামের সিস্টেমে তা ৯০ দিন পর্যন্ত থেকে যায়।

কিন্তু এই ব্যক্তির ক্ষেত্রে দীর্ঘ এক বছরেরও তার ডাটাগুলো ইন্সটাগ্রাম থেকে পুরোপুরি ডিলিট হয়নি। ফলে ইন্সটাগ্রামের ডাটা ডাউনলোড ফিচার ব্যবহার করেই তিনি এক বছর আগে ডিলিট করে দেওয়া মেসেজ ও ছবি পেয়ে গেছেন। যা ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক।

তিনি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘এক বছর আগে ডিলিট করে দেওয়ার পরও ইন্সটাগ্রাম আমার ডাটা তাদের সার্ভারে রেখে দিয়েছিলো। এটি বিস্ময়কর।’

২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে এই ত্রুটির কথা ইন্সটাগ্রামের কাছে তুলে ধরেন পোখারেল। ইন্সটাগ্রাম কর্তৃপক্ষ চলতি মাসের শুরুতে সেই বাগটি দূর করে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন পোখারেল।

এ বিষয়ে ইন্সটাগ্রামের একজন মুখপাত্র সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘একজন স্বাধীন গবেষক ও নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ আমাদের কাছে এই ত্রুটির কথা উল্লেখ করেছিলেন। এই ত্রুটির কারণে ডাইরেক্ট মেসেজে পাঠানো ছবি ও মেসেজ ডিলিট করে দেওয়ার পরও ব্যবহারকারির ডাউনলোড করা ডাটায় তা যুক্ত হয়ে যাচ্ছিলো। অর্থাৎ ডিলিট করার পরও তা সার্ভারে থেকে যাচ্ছিলো। এই ত্রুটি আমরা সারিয়েছি এবং ওই গবেষককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

একই ধরনের ত্রুটি ধরা পড়েছিলো টুইটারেও। তাদের মেসেজ সেবা ব্যবহার করে পাঠানো বার্তা ও ছবি ডিলিট করে দেওয়ার পরও ব্যক্তিগত ডাটা ডাউনলোডে তা আবার পাওয়া যাচ্ছিলো। টুইটার ইতোমধ্যেই এই ত্রুটি সারিয়ে ফেলেছে।

You might also like