লাইনে দাঁড়িয়ে ধর্ষণ, বিক্ষোভে উত্তাল ইসরায়েল

24

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

ইসরায়েলের একটি হোটেলে ১৬ বছর বয়সের কিশোরীকে গণ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ওই কিশোরীকে হোটেলে আটকে রাখা হয়। আর একে একে ভিতরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করছে। এজন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছে আরো প্রায় ২৯ জন। এ ঘটনায় দেশটির বিভিন্ন স্থান মানুষ বিক্ষোভ করছে।

দেশটির লোহিত সাগর উপকূলে ইলাত অবকাশ যাপন কেন্দ্রে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ধর্ষকদের বয়স ২০ উত্তীর্ণ। তারা ওই কিশোরীকে তার বেডরুমে আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরই মধ্যে এই ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ। এমন খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল।

এই ঘটনা ফাঁস হতে শুরু করলে মানুষ ধর্ষিতাকে সমর্থন করতে শুরু করে। তখন তিনি নিজেই সব ফাঁস করে দিয়েছেন। হাজার হাজার মানুষের প্রতিবাদের ফলে ইসরায়েলের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী এ ঘটনায় হস্তক্ষেপ করতে বাধ্য হন।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই কিশোরীকে অবকাশ যাপন কেন্দ্রের তার বেডরুমে আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করা হয়। গণমাধ্যমে এই খবর প্রচারিত হওয়ার পর লোকজন তেল আবিব, জেরুজালেমসহ বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ করেছে। ধর্ষিতা প্রথমে গত সপ্তাহে ইলাত পুলিশে এ বিষয়ে রিপোর্ট করে। কিন্তু তখন বিষয়টি তেমন প্রচার পায়নি। কিন্তু আস্তে আস্তে তথ্য যখন বেরিয়ে আসতে থাকে, তখন বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ শুরু হয়। এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এই ঘটনাকে হতাশাজনক বলে আখ্যায়িত করেন।

এ বিষয়ে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেন, একে বর্ণনা করার জন্য আর কোনো শব্দ নেই। সন্দেহজনক সবাইকে বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, এটা শুধু একজন কিশোরীর বিরুদ্ধে অপরাধই নয়। এটা মানবতাবিরোধী অপরাধ। এর বিরুদ্ধে আমাদের সবার নিন্দা জানানো উচিত।

এদিকে ধর্ষিতা তার সমর্থনকারীদের মাধ্যমে বলেন, তাকে অনলাইনেই নির্যাতন করা হচ্ছে। তার ভাষায়, আমাকে সমর্থন দিচ্ছেন বহু মানুষ। তাই আমি শক্তি পেয়েছি। কেউ জানেন না, আমার ওপর দিয়ে কি ঝড় বয়ে গেছে। তাহলে কিভাবে আমাকে সুবিচার দেবেন।

এমতাবস্তায় ইসরায়েলের যুব সমাজের প্রতি খোলা চিঠি লিখেছেন প্রেসিডেন্ট রুভেন রিভলিন। ওই চিঠিতে তিনি বলেন, যৌন নির্যাতন, ধর্ষণ, যৌনতায় বিপথগামিতা, যৌন সহিংসতা- এসব দাগ মুছে ফেলা যায় না। এসব অন্যায় ক্ষমার অযোগ্য। এসব আমাদের সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

You might also like