গরুর মাংসের প্যাকেটে মিলল করোনা

20

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

হিমায়িত গরুর মাংসের প্যাকেটে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করেছে চীন। শুক্রবার উহান শহর কর্তৃপক্ষ বলছে, ব্রাজিল থেকে আমদানিকৃত হাড়বিহীন গরুর মাংসের প্যাকেটে নভেল করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এরপরই দেশজুড়ে হিমায়িত খাবার পরীক্ষার কার্যক্রম বৃদ্ধি করেছে চীন।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীনের উহানের পৌর স্বাস্থ্য কমিশন এক বিবৃতিতে বলেছে, ব্রাজিল থেকে আমদানি করা হাড়বিহীন হিমায়িত গো-মাংসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে অন্তত তিনটি প্যাকেটে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে।
গত ৭ আগস্ট ব্রাজিল থেকে মাংসের এই চালান কিংদাও বন্দর হয়ে চীনে প্রবেশ করে এবং উহানে পৌঁছায় ১৭ আগস্ট। সম্প্রতি পরীক্ষার আগে পর্যন্ত মাংসগুলো একটি হিমাগারে মজুদ ছিল।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের মধ্যাঞ্চলের হুবেই প্রদেশের উহানের একটি সামুদ্রিক খাবার বিক্রির বাজারে প্রথমবারের মতো নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর এই ভাইরাস বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে প্রাণ কেড়েছে প্রায় ১৩ লাখ মানুষের। এছাড়া এতে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ কোটি ৩২ লাখের বেশি।

কমিশনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গরুর মাংসের চালানের রফতানিকারকের রেজিস্ট্রেশন কোড ২০১৫; যা মারফ্রিগ গ্লোবাল ফুডস এসএর মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। তবে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে মারফ্রিগ গ্লোবাল ফুডস এসএর মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

উহানের পৌর স্বাস্থ্য কমিশন বলছে, ওই হিমাগারের শতাধিক কর্মীর করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়া পরিবেশগত আরও অন্তত দুইশ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।
চলতি বছরের শুরুর দিকে করোনাভাইরাসের বিস্তার নিয়ন্ত্রণে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে চীন। এরই অংশ হিসেবে জুনের দিকে দেশটির সরকার আমদানিকৃত সব ধরনের খাবার পরীক্ষা শুরু করে। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশটিতে প্রায় ৩০ লাখ নমুনা পরীক্ষায় মাত্র ২২টিতে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

এছাড়া দেশটির কিছু বন্দরের কর্মীদের শরীরে সম্প্রতি এই ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। চলতি সপ্তাহে আমদানিকৃত বিভিন্ন ধরনের খাবার জীবাণুমুক্তকরণ এবং পরীক্ষার ব্যবস্থা বৃদ্ধি করে।

চলতি সপ্তাহে চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ আর্জেন্টিনা থেকে আমদানিকৃত গরুর মাংসের প্যাকেটেও করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হয়। শুক্রবার শ্যানডং প্রদেশ কর্তৃপক্ষ রাজ্যে আমদানিকৃত অপর একটি চালানের গরুর মাংসেও করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে।

বিশ্বের গরুর মাংসের বৃহত্তম ক্রেতা চীন। দেশটিতে গো-মাংস সরবরাহে শীর্ষে রয়েছে ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা।

You might also like