মধুতে যতো উপশম

25

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

মধু সাধারণত বিভিন্ন খাবার এবং পানীয়তে স্বাদ বাড়াতে ব্যবহৃত হয়। এই প্রাকৃতিক মিষ্টি আশ্চর্যজনক কিছু স্বাস্থ্য সুবিধাও দেয়। এটি খাবার এবং পানীয়তে পুষ্টি যোগ করে। মধুতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে। যা পাচনতন্ত্র, মন এবং শরীরে দারুণ প্রভাব ফেলে। তবে মধুর অনেক কার্যকরী ব্যবহার সম্পর্কে হয়তো আপনি জানেনই না! যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য বিশেষ উপকারি।

মধু ব্যবহারের কিছু অসাধারণ উপায়-

কাশি উপশম

মধু কাশি কমাতে সহায়তা করে। এটি গলার ব্যথায় লড়াই করতেও কার্যকরী। কাশি ও গলা ব্যাথা থেকে উপশম পেতে কয়েক ফোঁটা আদার রস এবং এক চা চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। রাতে ঘুমানোর আগে মিশ্রণটি পান করুন। খুব দ্রুতই ভালো ফল পাবেন।

ক্ষত নিরাময়

মধুর অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য ক্ষত নিরাময়ে সহায়তা করে। মায়ো ক্লিনিকের চিকিৎসা গবেষণা অনুসারে- মধু ব্যবহারে দ্রুত ক্ষত নিরাময় করে। বিশেষত পুড়ে যাওয়া ক্ষত নিরাময়ে এটি বেশি কার্যকরী। তবে শুধুমাত্র মধুর উপর নির্ভর করা উচিত নয়। সঠিক চিকিৎসার জন্য প্রথমে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

অনুজ্জ্বল ত্বকের জন্য

মধু ত্বকের মরা ও রুক্ষ কোষ দূর করে উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। এটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে এবং ব্রণ দূর করতে সহায়তা করে। আপনি মধু দিয়ে তৈরি মাস্ক এবং স্ক্রাব ব্যবহারে বিস্ময়কর ফল পেতে পারেন।

ভালো ঘুমে সহায়ক

নিদ্রাহীনতা মানবশরীরের জন্য ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনে। মানসিক অস্থিরতাসহ নানা কারণে অনিন্দ্রাজিনত সমস্যার সৃষ্টি হয়। তবে প্রতিদিন পরিমিত মধু পান বা মধুযুক্ত খাবার গ্রহণে নিন্দ্রাহীনতার সমস্যা দূর হতে পারে। ঘুমোতে যাওয়ার আগে গরম দুধে মধু মিশিয়ে পান করুন। কারণ মধু মন এবং শরীরে দারুণ প্রভাব ফেলে।

ঠোঁট ফাঁটা রোধে

মধু ফাঁটা ঠোঁটের প্রতিকার হিসেবে ব্যবহার হয়। মধু ব্যবহারে আপনার ঠোঁট নরম ও কোমল থাকবে। খাঁটি মধু মাস্কের মতো করে ঠোঁটে লাগান। এছাড়াও মধু দিয়ে তৈরি স্ক্রাবও ঠোঁটে ব্যবহার করতে পারেন।

You might also like