রাজধানীতে চুরি করতে ঢুকে গলা কেটে হত্যা

36

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

রাজধানী ঢাকার সবুজবাগের এক বাসায় ‘চুরি করতে ঢোকার পর দেখে ফেলায়’ এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত জান্নাতুল ফেরদৌস (৩০) সবুজবাগের নন্দিপাড়ার এক ভবনের চতুর্থ তলার ফ্ল্যাটে স্বামী মোস্তাফিজুর রহমান ও আট মাসের শিশু সন্তানকে নিয়ে থাকতেন।

সোমবার রাত ৮টার দিকে ওই হত্যাকাণ্ডের পর সাত তলা ওই বাড়ির ছাদ থেকে মনির নামের ২৮ বছর বয়সী এক নির্মাণ শ্রমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সবুজবাগ থানার ওসি মাহবুব আলম বলেন, ওই ভবনের চতুর্থ তলা পর্যন্ত ফ্ল্যাট মালিক ও ভাড়াটেরা থাকেন। উপরের তিনটি ফ্লোরের নির্মাণ কাজ এখনো শেষ হয়নি। জান্নাতরা দুই মাস আগে নিজেদের ওই নতুন ফ্ল্যাটে এসে উঠেছিলেন। তার স্বামী মোস্তাফিজ গুলশানে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। ঘটনার সময় তিনি বাসায় ছিলেন না।

ওসি বলেন, ‘ওই ভবনের নির্মাণ শ্রমিক মনির চুরির উদ্দেশ্যে গত রাতে জান্নাতদের ফ্ল্যাটে ঢোকে। জান্নাত তাকে দেখে ফেলায় মনির ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে এবং গলা কেটে হত্যা করে।’

জান্নাতকে হত্যার পর মনির ওই ভবনের ছাদে লুকিয়ে ছিলেন জানিয়ে ওসি বলেন, পুলিশ তাকে সেখান থেকেই গ্রেফতার করে। জান্নাতের শরীরে ছুরিকাঘাতের সাতটি চিহ্ন পাওয়া গেছে। ঘটনাস্থল থেকে ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে।

You might also like