আরেকটি প্রতারণার মামলায় ৬ দিনের রিমান্ডে সাহেদ

26

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান ও রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদ করিম ওরফে মোহাম্মদ সাহেদের আরো ৬ দিনের রিমান্ড মঞ্জুন করেছেন আদালত। পল্লবী থানার প্রতারণা ও চেক জালিয়াতির মামলার শুনানি শেষে আজ ২৬ আগস্ট, বুধবার তার এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ-উর রহমানের আদালত।

এর আগে সাহেদকে আদালতে হাজির করে পুলিশের পক্ষ থেকে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। বিপরীতে সাহেদের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামমঞ্জুর করে রিমান্ডের আদেশ দেন।

এর আগে পদ্মা ব্যাংকের (সাবেক দি ফারমার্স ব্যাংক) অর্থ আত্মসাৎ মামলায় শুনানি শেষে গত ১০ আগস্ট, সোমবার সাহেদকে ৭ দিনের রিমান্ডে দিয়েছিলেন আদালত।

গত ৬ আগস্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ আসামি সাহেদের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালত সাহেদের উপস্থিতিতে রিমান্ড শুনানির জন্য আজ সোমবার দিন ধার্য করেন। এদিন রিমান্ড শুনানির সময় সাহেদকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

গত ১৫ জুলাই, বুধবার ভোরে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর সীমান্ত এলাকা থেকে সাহেদকে গ্রেপ্তার করেন র‌্যাব সদস্যরা। এর পরপরই সেখান থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হয়। প্রথমে তাকে সরাসরি র‌্যাব সদর দপ্তরে নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

এরপর উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরে তার গোপন একটি কার্যালয়ের হদিস পাওয়া গেলে সাহেদকে নিয়েই সেখানে অভিযানে যায় র‌্যাব। সেখানে বিপুল পরিমাণ জাল টাকা পাওয়া যায় বলে জানায় র‌্যাব। পরে তারা সাহেদকে ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

এর আগে ১৩ জুলাই, সোমবার সন্ধ্যায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। অর্থ আত্মসাৎ মামলায় ঢাকা মুখ্য মহানগর মাজিস্ট্রেট মো. মাইনুল ইসলামের আদালত এই পরোয়ানা জারি করেন।

You might also like