ব্রিটিশ হাইকমিশনারকে ধন্যবাদ জানালেন মির্জা ফখরুল

8

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

‘খালেদা জিয়ার ব্রিটিশ ভিসা পাওয়ার বিষয়ে কোনো বাধা নেই’ ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট ডিকসনের এই বক্তব্যের জন্য তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ব্রিটেন এখনো একটি গণতান্ত্রিক দেশ। তাদের মধ্যে সভ্যতা, ভদ্রতা অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে যথেষ্ট বেশি আছে। তারা একটা গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে, একজন গণতান্ত্রিক নেতার প্রতি যে দায়িত্ব সেই কথাটিই বলেছেন। এজন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই।

শুক্রবার (২ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

খালেদা জিয়ার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ম্যাডাম যেমন ছিলেন, তেমনই আছেন। তার শারীরিক অবস্থা সবাই জানেন। খুব একটা উন্নতি হয়নি। ওনার আবার সমস্যা হয়েছে। খেতে পারছেন না।

বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে তিনি বলেন, এ বিষয়টা খালেদা জিয়ার চাওয়া এবং সরকারের দেওয়ার ওপর নির্ভর করছে। খালেদা জিয়া যদি যেতে চান, সেটা যদি পরিবারের পক্ষ থেকে আমাদের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে বলা হয়, সরকার যদি যেতে দেয়, তাহলেতো উনি যেতে পারবেন, না হলে তো পারবেন না। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত খালেদা জিয়া কিছু বলেননি। পরিবারে পক্ষ থেকেও কিছু বলা হয়নি।

আইন-শৃঙ্খলার অবণতি ও ধর্ষণ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, এ বিষয়গুলো যখন পত্র-পত্রিকা, চ্যানেলে আসে, আমরা কথা বলি তখন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুন্দর করে বলেন, এরা তো আওয়ামী লীগের লোক না। এমনকী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যিনি খুব কম কথা বলেন, সুন্দরভাবে কথা বলেন, তিনিও গতকাল (বৃহস্পতিবার) বলেছেন যে, বাংলাদেশে যে ধর্ষণের ঘটনাগুলো ঘটছে, এটা সারা পৃথিবীতেই ঘটছে। এটা কোনো উত্তর হতে পারে না।

মির্জা ফখরুল বলেন, গত পরশু (বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, বিএনপি শুধু ফেসবুকে আর ভার্চ্যুয়ালি আছে। ওনারা কোভিড নিয়ে যে অবস্থা তৈরি করেছেন, তাতে ওনারা কোথায় আছেন? আওয়ামী লীগকে বাদই দেন, সরকারের মন্ত্রীরা কোথায় আছেন? বিএনপিতো প্রথম থেকে চেষ্টা করেই যাচ্ছে। সীমিত সাধ্যের মধ্যে ত্রাণ দিয়েছে। প্রশ্ন হলো দায়িত্বটা কার। আজ দেশের মানুষের ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব হলো সরকারের। সেটা তারা কি করছেন?

You might also like