করোনায় কমবে মৃত্যু, ওষুধ পেলো ডাব্লিউএইচও

29

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তদের মৃত্যু থেকে রক্ষায় ওষুধের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)। স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ ব্যবহারে অতি সংকটাপন্ন করোনা রোগীদের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হবে বলে দাবি করছে আন্তর্জাতিক এই সংস্থাটি।

ডাব্লিউএইচও’র নতুন গাইডলাইনে দাবি করা হয়, কর্টিকোস্টেরয়েড জাতীয় ওষুধের প্রয়োগে করোনায় মৃত্যুর সম্ভাবনা নাকি ২০ শতাংশ পর্যন্ত কমতে পারে। সংকটাপন্ন করোনা রোগীকে বাঁচাতে স্বল্প মূল্যের ডেক্সামেথাজোনই প্রধান হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। সাইটোকাইন ঝড় থামিয়ে এই ওষুধটি ‘গুরুতর’ রোগীকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনছে।

সম্প্রতি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক এই দবি করেছেন। এর মধ্যে তারা ওষুধটির ট্রায়ালও সম্পন্ন করেছেন। তাদের সেই ট্রায়ালের মাধ্যমেই ওষুধটির অনুমোদন দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

এ বিষয়ে গবেষকরা দাবি করেন, ওষুধটি মৃত্যুর হার এক তৃতীয়াংশ কমিয়েছে। তবে এই ওষুধের ভুল প্রয়োগে বিপদ হতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন গবেষকরা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, তিন রকমের কর্টিকোস্টেরয়েড নিয়ে গবেষণা করে দেখা গিয়েছে এগুলো আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি করছে। এমনকি মৃত্যুর ঝুঁকি পর্যন্ত কমিয়ে দিচ্ছে। ভেন্টিলেটর সাপোর্টে থাকা সংকটজনক করোনা রোগীদের উপর হাইড্রোকর্টিজোন, ডেক্সামেথাজোন এবং মিথাইলপ্রেডনিজোলোনের মতো কর্টিকোস্টেরয়েডের ব্যবহার উল্লেখযোগ্য সাফল্য এনেছে।

সংস্থাটির ট্রায়াল বিভাগের প্রধান জ্যানেট ডিয়াজ বলেন, ‘৬৮ শতাংশ করোনা রোগী কর্টিকোস্টেরয়েডের থেরাপিতে সুস্থ হয়েছেন। তথ্য মতে, এই ওষুধ প্রয়োগে প্রতি ১০০০ জন সংকটাপন্ন রোগীর মধ্যে ৮৭ জনের প্রাণ বেঁচেছে। সুতরাং সংকটজনক রোগীদের মধ্যে এই ওষুধের প্রয়োগ হতেই পারে।’

এদিকে ওয়ার্ল্ডোমিটার’র তথ্য মতে, ৩ সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ২ কোটি ৬১ লাখ ৭৭ হাজার ৬০৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ৮ লাখ ৬৭ হাজার ৩৪৭ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন। বিপরীতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ৮৪ লাখ ৪২ হাজার ৩০৫ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ৬৮ লাখ ৬৭ হাজার ৯৫১ জন করোনারোগী, যাদের মধ্যে ৬০ হাজার ৬১৭ জনের অবস্থা গুরুতর।

You might also like