ডা. সুলতানাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের

32

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

জামালপুরের মেলান্দহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ভবন থেকে মরদেহ উদ্ধার হওয়া চিকিৎসক সুলতানা পারভীনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে তার পরিবার। শুক্রবার রাতে জামালপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে মৃত ডা. সুলতানা পারভীনের বাবা রেলওয়ের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন আজাদ এই দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, তার মেয়ে ডা. সুলতানা পারভীনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। ডা. সুলতানা পারভীনের গলায়, মুখে আঘাতের চিহ্ন ও মুখমণ্ডল রক্তাক্ত অবস্থায় ছিল। তার পরনে কোনো জামা-কাপড় ছিলনা। মেলান্দহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ও পুলিশের ভাষ্যমতে যদি ডা. সুলতানা প্যাথেডিন ইনজেকশন নিয়ে আত্মহত্যা করে থাকেন তাহলে তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন থাকতো না। তার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না বলেও দাবি করেন তিনি।

এ সময় পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেন ডা. সুলতানা পারভীনের সাবেক স্বামী সাব্বির হোসেন বা পেশাগত শত্রুতার কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ডা. সুলতানা পারভীনের বাবা মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন আজাদ, ছোট বোন মেরী সুলতানা ও বোনের স্বামী আসাদুল হক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১৬ আগস্ট মেলান্দহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ভবনে ডা. সুলতানা পারভীনের নিজ কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃতদেহের ময়নাতদন্তের পর তার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। ডা. সুলতানার বাড়ি রাজশাহী শহরের পোস্ট অফিস গলিতে।

You might also like