শিরোনাম:

ইভ্যালির গ্রাহকরা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়: টিক্যাব

ভারতে মোদির জন্মদিনে দেওয়া হবে দেড় কোটি টিকা

মেট্রোরেলের মালামাল চুরি, গ্রেপ্তার ৫

পুষ্টিগুণে ভরা জাম্বুরা

র‍্যাংকিংয়ে আরও পেছাল বাংলাদেশ

সারারাত সহবাস করতে চাইলে সন্ধ্যাবেলায় যে খাবারগুলো খেতে হবে

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : মার্চ ৩০, ২০২১

শেয়ার করুন

সারারাত সহবাস করতে পারবেন সন্ধাবেলায় এই খাবার গুলি খেলে। শরীরের বিভিন্ন পুষ্টি পূরণে আমরা প্রতিদিনই অনেক ধরনের পুষ্টিকর খাবার খেয়ে থাকি কিন্তু সবাই জানি না যে কোন ধরনের খাবার আমাদের সে’ক্স বাড়াতে সক্ষম? সাধারণত খাবার ভিটামিন এবং মিনারেলের ভারসাম্য ঠিক থাকলে শরীরে এন্ড্রোক্রাইন সিস্টেম সক্রিয় থাকে।

আর তা আপনার শরীরে এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরনের তৈরি হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন সে’ক্সের ইচ্ছা এবং পারফরমেন্সের জন্য জরুরি। আপনি যৌ’ন মিলনের মুডে আছেন কিনা তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে আপনার খাদ্য। আমরা আজ সেই খাবার গুলোর সাথে পরিচিত হব।

এমন কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্য সম্পর্কে যা আপনার শরীরে সে’ক্স পাওয়ার বাড়ায় বহুগুণ।

১ – দুধঃ বেশি পরিমাণ প্রাণিজ-ফ্যাট আছে এ ধরনের প্রাকৃতিক খাদ্য আপনার যৌ’নজীবনের উন্নতি ঘটায়। যেমন, খাঁটি দুধ, দুধের সর, মাখন ইত্যাদি। বেশিরভাগ মানুষই ফ্যাট জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে চায়। কিন্তু আপনি যদি শরীরে সেক্স হরমোন তৈরি হওয়ার পরিমাণ বাড়াতে চান তাহলে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট জাতীয় খাবারের দরকার। তবে সগুলিকে হতে হবে প্রাকৃতিক এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট।

২ – ঝিনুকঃ আপনার যৌ’নজীবন আনন্দময় করে তুলতে ঝিনুক খাদ্য হিসেবে খুবই কার্যকরী। ঝিনুকে খুব বেশি পরিমাণে জিঙ্ক থাকে। জিঙ্ক শুক্রাণুর সংখ্যা বৃদ্ধি করে এবং লিবিডো বা যৌ’ন-ইচ্ছা বাড়ায়। ঝিনুক কাঁচা বা রান্না করে যে অবস্থাতেই খাওয়া হোক, ঝিনুক যৌ’নজীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে খাবার

৩ – খেজুরঃ প্র‌তি‌দিন প্রাতরাশ খাওয়ার সময় খেজুর খাওয়ার অভ্যাস গ‌ড়ে তুলুন। মাখনের সাথে খেজুর মিলিয়ে খেলে যৌ”নশক্তি বৃদ্ধি পায়, সেই সা‌থে শরীরের গঠন বাড়ে ও কন্ঠস্বর পরিস্কার হয়। খেজুর চুষলে তেষ্টা কম হয়। খেজুর দেহের শিরা কোমল করে এবং প্রসব ও শিরায় খিচুনির ফলে “আকটান পেইন” নামক যে ব্যাথা সৃষ্টি হয় তা দূর করে। মহিলাদের মধ্যে যৌ”ন উত্তাপ সৃষ্টি করে।

৪ – কিসমিসঃ মানব শরী‌রে যৌ”ন উ‌দ্দীপনা বা যৌ”ন শ‌ক্তি বৃ‌দ্ধি‌তে কিস‌মি‌সের সা‌থে অন্য কোন কিছুর তুলনা হয় না। আঙ্গুর ফলকে বি‌শেষ প্র‌ক্রিয়ায় কিস‌মি‌সে রুপান্তর করা হয়। কিন্তু গু‌নের দিক থে‌কে আঙ্গু‌রের চাই‌তে কিস‌মি‌সের অবদান অ‌নেক বে‌শি।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত