শিরোনাম:

জয়ার ‘ম্যাংগো শাড়ি’

বিভিন্ন অধিদপ্তরে জনবল নিয়োগে পিএসসির বিজ্ঞপ্তি

কোয়ারেন্টাইনে সাকিব-মোস্তাফিজের ঈদ

শেষ বৈশাখে রাজশাহী ঢেকেছে শীতের কুয়াশায়!

ঈদে সালমানের বিরিয়ানির অপেক্ষায় থাকেন শাহরুখ

আবারও ব্যর্থ উইলিয়ামসন , সুপার ওভারে জিতলো দিল্লি

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : এপ্রিল ২৬, ২০২১

শেয়ার করুন

ক্রীড়া ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

সুপার ওভারে জিতলো দিল্লিনায়ক হতে পারতেন কেন উইলিয়ামসন। সতীর্থদের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে দারুণ এক ইনিংস খেলেন তিনি। জয়ের খুব কাছে ছিল দল। কিন্তু শেষ ওভারে জয়ের নায়ক হতে পারেননি। তবে সমতা ফেরান। তাতে এই আইপিএল প্রথম সুপার ওভারের স্বাক্ষী হলো। এই এক ওভারের লড়াইয়ে আর পেরে ওঠেনি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, জয় পায় দিল্লি ক্যাপিটালস।

একের পর এক ব্যাটসম্যানকে ফিরে যেতে দেখেও অবিচল ছিলেন উইলিয়ামসন। শেষ দুই ওভারে দরকার ছিল ২৮ রান। এমন পরিস্থিতিতেও মাথা ঠাণ্ডা রেখেছিলেন নিউ জিল্যান্ডের ব্যাটসম্যান। ১৯তম ওভারে এক উইকেটের বিনিময়ে আসে ১২ রান। শেষ ওভারে দরকার ১৬ রান।

কাগিসো রাবাদা প্রথম বল দেন ওয়াইড। পরের বলে উইলিয়ামসন মারেন চার। অন্য প্রান্তে ছিলেন আইপিএলে অভিষেক হওয়া জগদীশা সুচিথ। তার ওপর আস্থা হারাননি। বাই রান নিয়ে তাকে স্ট্রাইকে পাঠান। ছক্কা মেরে আস্থার প্রতিদান দেন সুচিথ। পরের বলে একটি বাই রান। উইলিয়ামসন পঞ্চম বলে সিঙ্গেল নেন। সুচিথ শেষ বলে প্রয়োজনীয় ২ রান নিতে না পারলেও সিঙ্গেল নিয়ে স্কোর সমান করেন। ৭ উইকেটে হায়দরাবাদ করে ১৫৯ রান। তাতে সুপার ওভারে গড়ায় ম্যাচ।

এর আগে আবেশ খানের পেস আর অক্ষর প্যাটেলের ঘূর্ণিতে কাবু হয়ে পড়ে হায়দরাবাদ। ৪২ বলে ফিফটি করা উইলিয়ামসন বাদে কেবল জনি বেয়ারস্টো (৩৮) ও সুচিথ (১৫*) দুই অঙ্কের ঘরে রান করেন। মাত্র ১৮ বলে ৩ চার ও ৪ ছয়ে এই রান করেন ইংলিশ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। সুচিথ শেষ দিকে উইলিয়ামসনকে সমর্থন দিয়ে ম্যাচ সুপার ওভারে নেন। উইলিয়ামসন ৫১ বলে ৮ চারে ৬৬ রানে অপরাজিত ছিলেন।

দিল্লির পক্ষে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন আবেশ, দুটি পান অক্ষর।

সুপার ওভারে দিল্লির বল করতে নামেন অক্ষর। হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার ও উইলিয়ামসন। দুই হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান ৭ রানের বেশি তুলতে পারেননি। শেষ বলে দুই রান নেওয়ার সময় ওয়ার্নার তার ব্যাট লাইন পার না হওয়ায় একটি রান ধরা হয়। উইলিয়ামসনের একটি চার ছিল।

স্পিনের বদলে স্পিন আক্রমণে যায় হায়দরাবাদ। রশিদ খান বল হাতে নেন, ব্যাটিংয়ে ছিলেন ঋষভ পান্ত ও শিখর ধাওয়ান। প্রথম দুই বলে এপ্রান্ত-ওপ্রান্ত বদল করে দুটি রান নেন তারা। তৃতীয় বলে চার মেরে কাজ সহজ করে দেন পান্ত। পরের বলটি ডট দেন রশিদ। পঞ্চম বলে লেগ বাইয়ে এক রান নেন পান্ত। শেষ বলে লেগ বাই থেকে একটি রান নিয়ে জয় নিশ্চিত করেন ধাওয়ান।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত