করোনা : একদিনে আরো ৬ হাজারের বেশি মৃত্যু

48

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

করোনার সংক্রমণে মৃত্যুর সারি ক্রমাগত দীর্ঘ হয়ে চলেছে। কোনোভাবেই ঠেকানো যাচ্ছে না মৃত্যু। বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৬ সহস্রাধিক মানুষের প্রাণ কেড়েছে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। একই সময়ে নতুন করে আরো প্রায় তিন লাখ মানুষের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এই বৈশ্বিক মহামারীতে মৃতের সংখ্যা ৯ লাখ ৭৫ হাজার ছাড়িয়েছে। সরকারি হিসেবে, মোট আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি ১৮ লাখ ছুঁইছুঁই।

পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার’র তথ্য মতে, আজ ২৩ সেপ্টেম্বর, বুধবার সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ৩ কোটি ১৭ লাখ ৭৫ হাজার ৯১ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ৯ লাখ ৭৫ হাজার ৪২৭ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন। বিপরীতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ কোটি ৩৩ লাখ ৯৩ হাজার ৩৯০ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ৭৪ লাখ ৬ হাজার ২৭৪ জন করোনারোগী, যাদের মধ্যে ৬২ হাজার ৮৯ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত পৃথিবীর সর্বোচ্চসংখ্যক মানুষের শরীরে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ সংখ্যা বেড়ে ৭০ লাখ ৯৭ হাজার ৯৩৭ জনে দাঁড়িয়েছে। ভারতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৬ লাখ ৪০ হাজার ৪৯৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। ব্রাজিলে তৃতীয় সর্বোচ্চ ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৩৩৫ জন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া রাশিয়ায় চতুর্থ সর্বোচ্চ ১১ লাখ ১৫ হাজার ৮১০ জন ও কলম্বিয়ায় পঞ্চম সর্বোচ্চ ৭ লাখ ৭৭ হাজার ৫৩৭ জনের কোভিড-১৯ ধরা পড়েছে।

শীর্ষ দশে থাকা অন্য দেশগুলো হলো— পেরু (৭ লাখ ৭৬ হাজার ৫৪৬ জন), মেক্সিকো (৭ লাখ ৫ হাজার ২৬৩ জন), স্পেন (৬ লাখ ৮২ হাজার ২৬৭ জন), দক্ষিণ আফ্রিকা (৬ লাখ ৬৩ হাজার ২৮২ জন) ও আর্জেন্টিনা (৬ লাখ ৫২ হাজার ১৭৪ জন)।

কোভিড-১৯ মহামারীর প্রাণহানিতেও শীর্ষে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ৫ হাজার ৪৭১ জনে দাঁড়িয়েছে। ব্রাজিলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১ লাখ ৩৮ হাজার ১৫৯ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ভারতে মারা গেছেন তৃতীয় সর্বোচ্চ ৯০ হাজার ২১ জন। এছাড়া মেক্সিকোতে চতুর্থ সর্বোচ্চ ৭৪ হাজার ৩৪৮ জন ও যুক্তরাজ্যে পঞ্চম সর্বোচ্চ ৪১ হাজার ৮২৫ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা।

এ হিসেবে শীর্ষ দশে রয়েছে— ইতালি (মৃত্যু ৩৫ হাজার ৭৩৮ জন), পেরু (মৃত্যু ৩১ হাজার ৫৮৬ জন), ফ্রান্স (মৃত্যু ৩১ হাজার ৪১৬ জন), স্পেন (মৃত্যু ৩০ হাজার ৯০৪ জন) ও ইরান (মৃত্যু ২৪ হাজার ৬৫৬ জন)।

এছাড়া কলম্বিয়ায় ২৪ হাজার ৫৭০ জন, রাশিয়ায় ১৯ হাজার ৬৪৯ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৬ হাজার ১১৮ জন, আর্জেন্টিনায় ১৩ হাজার ৯৫২ জন, চিলিতে ১২ হাজার ৩২১ জন, ইকুয়েডরে ১১ হাজার ১২৬ জন, বেলজিয়ামে ৯ হাজার ৯৫০ জন, ইন্দোনেশিয়ায় ৯ হাজার ৮৩৭ জন, জার্মানিতে ৯ হাজার ৪৯১ জন, কানাডায় ৯ হাজার ২৩৪ জন, ইরাকে ৮ হাজার ৬৮২ জন, বলিভিয়ায় ৭ হাজার ৬৯৩ জন, তুরস্কে ৭ হাজার ৬৩৯ জন, পাকিস্তানে ৬ হাজার ৪২৪ জন, নেদারল্যান্ডসে ৬ হাজার ২৯১ জন, সুইডেনে ৫ হাজার ৮৭০ জন, মিসরে ৫ হাজার ৮০৬ জন, ফিলিপাইনে ৫ হাজার ৪৯ জন, বাংলাদেশে ৫ হাজার ৭ জন, চীনে ৪ হাজার ৬৩৪ জন, সৌদি আরবে ৪ হাজার ৫৪২ জন, রোমানিয়ায় ৪ হাজার ৫০৩ জন, ইউক্রেনে ৩ হাজার ৬৪২ জন, গুয়াতেমালায় ৩ হাজার ১৩৭ জন, পোল্যান্ডে ২ হাজার ৩১৬ জন, পানামায় ২ হাজার ২৮৫ জন, হন্ডুরাসে ২ হাজার ২০৪ জন, ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্রে ২ হাজার ৬৪ জন ও সুইজারল্যান্ডে ২ হাজার ৫৪ জনের প্রাণ কেড়েছে কোভিড-১৯ মহামারী।

You might also like