শিরোনাম:

ঢাকা ব্যাংকের ভল্ট থেকে পৌনে ৪ কোটি টাকা উধাও

চট্টগ্রাম বন্দরে বিটুমিনবাহী বিদেশি জাহাজ জব্দ

অন্তরঙ্গ ছবি ধারণ করে আরও ২ নায়িকাকে ফাঁদে ফেলেছিল পরীর বন্ধু অমি

চীনের টিকা নিয়ে ইন্দোনেশিয়ায় করোনায় আক্রান্ত ৩৫০ চিকিৎসক

বিশ্বজুড়ে নতুন আতঙ্ক ‘সিংকহোল’, হঠাৎ করেই তৈরি হচ্ছে দানবীয় গর্ত

মিম হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : নভেম্বর ২২, ২০২০

শেয়ার করুন

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

নওগাঁর ধামইরহাটে সরকারি এম এম কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী তানিয়া আকতার (মিম) কে পত্নীতলার ইসলামিয়া ক্লিনিক এন্ড ডিজিটাল ডায়গনস্টিক সেন্টারে নির্মমভাবে হত্যার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে কলেজ শিক্ষার্থীরা।

শনিবার (২১ নভেম্বর) উপজেলা পরিষদের সামনে কলেজ শিক্ষার্থী রাজু ইসলামের নেতৃত্বে সরকারি এম এম কলেজের শত শত শিক্ষার্থী, শিক্ষক-অভিভাবক ও সাধারণ জনগণ মানববন্ধনে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় পত্নীতলা থানায় মামলা না নেয়া, পরিবারের লোকজনদের সাথে ভিকটিমের লাশ দেখতে না দেয়া, থানায় জোর করে পিতার স্বাক্ষর নেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগের বিষয় উল্লেখ করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. জাবিদ হোসেন মৃদু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট আইয়ুব হোসেন, তানিয়া আকতার মিমের মা শম্পা আকতার, উপজেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান, চাচাতো বোন সাদিয়া সুলতানা, সাংবাদিক হারুন-আল রশীদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান হোসাইন, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুদ রানা ফারুক ও ছাত্রনেতা মাহবুব আলম রাজ।

এছাড়াও চকময়রাম মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও আমইতাড়া সফিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯৪ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা কালো টি-শার্ট পরে মানববন্ধনে এসে একাত্মতা ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে পত্নীতলা থানার পুলিশ বলছে, যেহেতু একটি বদ্ধ ঘর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে, বিষয়টি পুলিশ গভীরভাবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে মিমের বাবা মিজানুর রহমানের নিকট জোর করে স্বাক্ষর নেয়ার বিষয়ে ওসি শামসুল আলম শাহ বলেন, পরিবারের লোকজন বা কোন সাংবাদিকের এ বিষয়ে কোন অভিযোগ থাকলে স্বাক্ষাতে এসে কথা বলতে হবে।

উল্লেখ্য গত ১৮ নভেম্বর পত্নীতলার নজিপুরে ইসলামিয়া ক্লিনিক এন্ড ডিজিটাল ডায়গনস্টিক সেন্টারে কর্মরত সেবিকা তানিয়া আকতার মিমের লাশ উলঙ্গ অবস্থায় থানা পুলিশ উদ্ধার করে। পরিবারের দাবী তাকে ধর্ষণ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে ওই ক্লিনিকের মালিক নিজামুদ্দিন বাবু।

অভিযোগ রয়েছে, ওই ক্লিনিকে নিয়োগের পূর্ব শর্ত হচ্ছে প্রথমত সুন্দরী মেয়ে হতে হবে আর এসব সুন্দরী মেয়েকে কখনো নার্স, কখনো রিসিপশনিস্ট ও ভালো লোভনীয় পদ-পদবীর লোভ দেখিয়ে তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত