শিরোনাম:

আজকের রাশি। ১২ মে

উৎসব ভাতা থেকে বঞ্চিত ৭০ ভাগ সাংবাদিক

কোভিডের চিকিৎসায় আইভারমেক্টিন ব্যবহারে সতর্ক করল হু

গাড়ির কাঁচ ভেঙে বাঁচার আকুতি জানালেও কেউ এগিয়ে আসেনি

রাশিয়ার স্কুলে বন্দুক হামলা, নিহত ১১

সাইনবোর্ড-গুলিস্তান এলাকায় সিএনজি সিন্ডিকেটে জিম্মি যাত্রীরা

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : এপ্রিল ২৮, ২০২১

শেয়ার করুন

নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড থেকে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার হয়ে গুলিস্তান পর্যন্ত একদল সিএনজিচালক গণপরিবহন বন্ধের সুযোগ নিচ্ছে সিন্ডিকেট করে। মাত্র ১৫ মিনিটের রাস্তায় তারা চার থেকে পাঁচজন করে যাত্রী নিয়ে সবার কাছ থেকে ভাড়া নিচ্ছেন ১০০ থেকে ১২০ টাকা।

মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) ও সোমবার (২৬ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় সরেজমিন ঘুরে এ সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম্য দেখা গেছে। নিতান্ত প্রয়োজন ও কর্মজীবী মানুষের অফিসে যাবার ভিন্ন পথ না থাকায় যাত্রীরা জিম্মি হয়ে পড়েছেন এ সিন্ডিকেটের কাছে। ফলে তারা দ্রুত এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানিয়েছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকেই সাইনবোর্ড মোড়ে একদল চালক সিএনজি নিয়ে সিন্ডিকেট করে যাত্রী উঠাচ্ছেন। তাদের গন্তব্য গুলিস্তান। কোনো গণপরিবহন না থাকায় ঢাকায় প্রবেশের এখন একমাত্র মাধ্যম হয়ে পড়েছে এ সিএনজি। প্রতিটি সিএনজিচালক চার থেকে পাঁচজন করে যাত্রী নিচ্ছেন।

এছাড়া এখানে কোনো সামাজিক দূরত্ব কিংবা স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। চারজন যাত্রী নিলে প্রত্যেক যাত্রীকে ভাড়া গুনতে হয় ১২০ টাকা আর পাঁচজন যাত্রী নিলে ১০০ টাকা। প্রতিটি যাত্রায় সিএনজিচালকের আয় হয় ৫০০ টাকা। অথচ মাত্র ১৫ মিনিটের এ সড়কের ভাড়া গণপরিবহনে সর্বোচ্চ ১০ থেকে ১৫ টাকা।

ওয়াহিদ জামান নামে এক যাত্রী বলেন, আমরা এক প্রকার জিম্মি হয়ে পড়েছি তাদের কাছে। ভয়ঙ্কর সিন্ডিকেট আর তাদের ছাড়া অফিসে যাবার অন্য কোনো মাধ্যমও নেই। তাই বাধ্য হয়েই তাদের এ দৌরাত্ম্য মেনে নিতে হচ্ছে।

অভিযুক্ত সিএনজিচালকদের সঙ্গে কথা বললে তারা নানা অজুহাত দেখান। সামসুদ্দিন, হায়দার, মানিক ও রহমত নামে চালকরা জানান, ‘লকডাউনে’ যাত্রী নেই। শুধুমাত্র সকালে অফিসের সময় ও বিকেলে অফিস ছুটির সময় যাত্রী পাওয়া যায়। তাছাড়া টোল দিতে হয় ফ্লাইওভারে। আবার দিন শেষে তো মালিককেও ভাড়ার টাকা জমা দিতে হয়।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ফ্লাইওভারে সিএনজির টোল মাত্র ২০ টাকা। এছাড়া দিনের অন্য সময়েও এ চালকরা বিভিন্ন জায়গায় সিএনজি চালান।

পুরো বিয়ষটি নিয়ে সংশ্লিষ্টদের নজরদারি ও যাত্রীদের জন্য একটি বিকল্প ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী সংশ্লিষ্টরা।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত