অন্যদুনিয়াঃ ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার খালের পাশে একটি রাজহংসী ছয়টি ডিম নিয়ে বসেছিল। তার সঙ্গী ছিল একটি রাজহাঁস। কয়েক সপ্তাহ আগে কয়েকটি কিশোর ইট-পাথর ছুঁড়ে রাজহংসীর তিনটি ডিম ভেঙে ফেলে। তারপর থেকে রাজহংসীটি নিখোঁজ ছিল। কিন্তু চলতি সপ্তাহে জানা যায়, রাজহংসীটি মারা গেছে।

ম্যানচেস্টার ইভিনিং নিউজকে কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন—ওই কিশোরের দল রাজহংসীর বাসা নিশানা করে ইট-পাথর ছুঁড়ছিল। তখন ছয়টি ডিমের মধ্যে তিনটি ডিম ভেঙে যায়। পরে একটি ডিম ছাড়া বাকি দুটো ডিমও নষ্ট হয়ে যায়।

অন্যদিকে রাজহাঁসটিও বাসা ছেড়ে চলে যায়। কিন্তু রাজহংসীটি মারা গেল কেন? বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল জানিয়েছে, রাজহংসী যদি তার সঙ্গী হারিয়ে ফেলে তবে তার হৃদয় ভেঙে যায় এবং মারা যায়। সাধারণত রাজহংসী যৌথ জীবন যাপন করে।

বন্যপ্রাণী কর্মীরা মনে করেন—ডিম হারানোর কষ্টে রাজহাঁসটি অনেক দূরে চলে গিয়েছে।

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে কাজ করেন অ্যাক্টিভিস্ট স্যাম উডরো। তিনি বলেন—আসলে আমি বেশি কিছু বলতে পারছি না। আমার মনে হয়, অতিষ্ঠ হয়ে রাজহাঁসটি অন্যত্র চলে গেছে। আর এ কারণে রাজহংসী মারা গেছে।

প্রাণীরাও সমাজের অংশ। এদের সংরক্ষণের কথা ইংল্যান্ডের আইনে বলা আছে। কিন্তু তার পরেও কিছু মানুষের অমানবিক আচরণের জন্য প্রাণ হারায় অনেক প্রাণী।

আরএসপিসিএ-এর মুখপাত্র বলেন—এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। রাজহংসীর মৃত্যুর খবর শোনে খুব খারাপ লাগছে। আমরা ঘটনার তদন্ত করছি। কেউ কোনো প্রমাণ পেলে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।