সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

দেশের অধস্তন আদালতগুলোতে ভার্চুয়াল শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার মোট ১ হাজার ৮২১ আসামি জামিন পেয়েছেন। সন্ধ্যায় সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান দেশ রূপান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১২ মে) সারাদেশের বিভিন্ন জেলার অধস্তন ১৪৪ জন এবং গতকাল বুধবার আরও ১ হাজার ১৩ আসামি জামিন পান। এ নিয়ে অধস্তন আদালতে গত তিনদিনে ২ হাজার ৯৭৮ আসামি ভিডিও কনফারেন্সে শুনানির মাধ্যমে জামিন পেলেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকার নির্ধারিত ছুটির মধ্যে আইনজীবী, সাক্ষী ও আসামিদের শারীরিক উপস্থিতি ব্যতিরেকে ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয় গত সোমবার। গত ৭ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে মন্ত্রীসভার বৈঠকে ‘আদালত কর্তৃক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০ ’-এর খসড়া অনুমোদন লাভের পর ৯ মে এ সম্পর্কিত অধ্যাদেশ জারি করা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, অধস্তন আদালতে আপাতত আসামিদের জামিন শুনানি হচ্ছে। একই সঙ্গে হাইকোর্টে একাধিক ভার্চুয়াল বেঞ্চে অতি জরুরি ফৌজদারি, দেওয়ানি, রিট মামলাসহ বিভিন্ন মামলার শুনানি ও আদেশ হচ্ছে। আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান নির্ধারিত দুই দিন ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে চেম্বার কোর্টে শুনানি গ্রহণ করবেন।

সরকার ঘোষিত ছুটি ও পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ‘প্র্যাকটিস ডাইরেকশন’ অনুসরণ করে সুপ্রিম কোর্ট ও অধস্তন আদালতে বিচার কার্যক্রম এভাবে পরিচালিত হবে বলে জানায় সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

ভার্চুয়াল আদালত ব্যবহারের বিষয়ে আইনজীবীদের জন্য ‘আমার আদালত: ভার্চুয়াল কোর্টরুম ব্যবহার ম্যানুয়াল’ নামে একটি নির্দেশিকা প্রকাশের পাশাপাশি আদালত পরিচালনার জন্য একটি ওয়েব পোর্টালও চালু করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এ পোর্টালের মাধ্যমে হচ্ছে মামলার আবেদন ও শুনানি।