নাটোর প্রতিনিধিঃ সোনারদেশ২৪:

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জনসমাগম করে বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টার দায়ে কনের বাবাকে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও প্রিয়াংকা দেবীর আদালত এ দণ্ডাদেশ দেন।

সোমবার (২৯ জুন) রাতে উপজেলার বারইপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। দণ্ডিত মতিউর রহমান বারইপাড়া মহল্লার বাসিন্দা।

ইউএনও অফিস সূত্রে জানা গেছে, মতিউর রহমানের মেয়ে মীম খাতুন চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। মতিউর রহমান সম্প্রতি মেয়ের বিয়ে ঠিক করেন।

সোমবার (২৯ জুন) বারইপাড়া মহল্লায় তার আত্মীয় গোলাম রসূলের বাড়িতে এ বিয়ের আয়োজন চলছিল। করোনা পরিস্থিতিতে কোনো স্বাস্থ্যবিধি না মেনে সামাজিক অনুষ্ঠান এবং বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় ইউএনও প্রিয়াংকা দেবী পাল মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা খাতুনকে নিয়ে সেখানে অভিযান চালান।

সেসময় জনসমাগম করে বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টায় কনের বাবা মতিউরকে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন। পরে নগদ অর্থ পরিশোধ করলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয় এবং বাল্য বিয়ে বন্ধ করা হয়।

ইউএনও প্রিয়াংকা দেবী পাল বলেন, ‘একদিকে বাল্য বিয়ে অপর দিকে করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে সামাজিক অনুষ্ঠান করায় এ দণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।’