করোনাভাইরাসে আজও সর্বোচ্চ শনাক্ত ও মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ৪০৮ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৭৭২ জন। মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮৫১১ জনে। সুস্থ হয়েছেন ৩৯৫ জন। সর্বমোট সুস্থ হয়েছেন ৫৬০২ জন।

২১ মে, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১০২৬২টি। এর মধ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৭৭৩ জন। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২০৩৮৫২ টি।

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল ৫৪৯ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়। এরপর ২৯ এপ্রিল ৬৪১ জন, ৩০ এপ্রিল ৫৬৪ জন, ১ মে ৫৭১ জন, ২ মে ৫৫২ জন, ৩ মে ৬৬৫ জন, ৪ মে ৬৮৮ জন, ৫ মে ৭৮৬ জন, ৬ মে ৭৯০ জন, ৭ মে ৭০৬ জন, ৮ মে ৭০৯ জন, ৯ মে ৬৩৬ জন, ১০ মে ৮৮৭ জন, শরীরে ধরা পড়ে কোভিড-১৯ নামের ভাইরাসটি।

১১ মে প্রথমবারের মতো দেশে একদিনে সহস্রাধিক করোনারোগী শনাক্ত হয়। সেদিন ১ হাজার ৩৪ জনের শরীরে ভাইরাসটি ধরা পড়ে। এরপর ১২ মে ৯৬৯ জন, ১৩ মে ১ হাজার ১৬২ জন, ১৪ মে ১ হাজার ৪১ জন, ১৫ মে ১ হাজা ২০২ জন ও ১৬ মে ৯৩০ জন, ১৭ মে ১ হাজার ২৭৪ জন, ১৮ মে ১ হাজার ৬০২ জন, ১৯ মে ১ হাজার ২৫১ জন, ২০ মে ১ হাজার ৬১৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণহানির সংখ্যা বৃহস্পতিবার, ২১ মে পর্যন্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯০৩ জনে।