ক্রীড়া ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে ক্রিকেট ফেরানোর জন্য বেশ কিছু নিয়ম পরিবর্তনের প্রস্তাব দিয়েছে আইসিসির ক্রিকেট কমিটি। অন্যতম প্রস্তাব অবশ্যই, থুথু দিয়ে বল পালিশ করার নিয়মে নিষেধাজ্ঞা। সেই সঙ্গেই অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন কমিটি প্রস্তাব দিয়েছিল, স্থানীয় আম্পায়ারদের নিয়ে ম্যাচ পরিচালনা করার বিষয়ে।

সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ও আইসিসির ক্রিকেট কমিটির চেয়ারম্যান জানিয়ে দিয়েছেন, প্রত্যেকটি প্রস্তাবই সাময়িক সমাধানের কথা ভেবে দেওয়া। আইসিসি চূড়ান্ত অনুমোদন না দিলে কোনো নিয়মই পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।

থুথুর ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করার প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছেন অনেকেই। মাইকেল হোল্ডিং থেকে ওয়াকার ইউনিসের মতো প্রাক্তনেরা মনে করেন, এতে ক্রিকেট থেকে হারিয়ে যাবে রিভার্স সুইং শিল্প। ব্রেট লি এই প্রস্তাবকে সমর্থন করলেও জানিয়েছেন, নিয়ম মেনে চলা কঠিন। কুম্বলে বলেছেন, ‘এখনও নির্দিষ্ট কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। থুথু ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব একেবারেই সাময়িক।’ যোগ করেন, ‘যতদিন করোনা আতঙ্ক থাকবে, ততদিন এই নিয়ম পালন করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

পরিস্থিতি আবার আগের মতো হলে, পুরনো নিয়মেই খেলা হবে।’ কৃত্রিম কোনও বস্তু ব্যবহার করে বল পালিশ করার নিয়মকে সমর্থন করেছেন অনেকেই। কুম্বলের নেতৃত্বাধীন ক্রিকেট কমিটিও এ বিষয়ে আলোচনা করেছিল। তিনি বলেছেন, ‘ক্রিকেটের ইতিহাস যদি ঘেঁটে দেখা হয়, তাহলে জানা যাবে, কৃত্রিম যে কোনও বস্তুর ব্যবহারের সব সময়ই বিরোধিতা করেছে আইসিসি।

এতদিন কৃত্রিম পদার্থ দিয়ে বল পালিশ করার পদ্ধতিকে প্রতারণা হিসেবে দেখা হত। যদিও আমরা আলোচনা করেছি যে, কৃত্রিম পদার্থ ব্যবহার করার প্রস্তাব দেওয়া হবে কি না। পাশাপাশি ক্রিকেটের সংস্কৃতির কথা মাথায় রেখে এই প্রস্তাব আমরা দিতেও পারি না।’ ২০১৮ সালের বল বিকৃতি কাণ্ডের উদাহরণ টেনে কুম্বলে বলেছেন, ‘স্যান্ডপেপারগেট হওয়ার পরে আইসিসি কঠোর পদক্ষেপ করেছিল। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াও কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বল বিকৃতি কাণ্ডে জড়িতদের বিরুদ্ধে। তাহলে আমরা কী করে কৃত্রিম পদার্থ ব্যবহারের প্রস্তাব দিই?’