সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে টানা ২১ দিনের লকডাউনের পর খুলে দেওয়া হয়েছে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজার। তবে করোনার সংক্রমণ যেন নতুন করে না বাড়ে সেজন্য আরো ১০ থেকে ১৫ দিন কড়াকড়ি থাকবে ওই এলাকায়। করোনার নমুনা সংগ্রহের জন্য বুথও খোলা থাকবে ওই এলাকায়।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) রাতে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘রাত ১২টা থেকে লকডাউন আর থাকছে না। তবে আমরা সাবধানতার জন্য আরো ১০ থেকে ১৫ দিন কড়াকড়িভাবে এলাকা পর্যবেক্ষণ করব। এলাকার বাসিন্দা ছাড়া অন্য কাউকে অপ্রয়োজনে প্রবেশ করতে দেব না।‘

ফরিদুর রহমান জানান, পূর্ব রাজাবাজারের ১০টি গেটের একটি খোলা ছিল। এখন থেকে দুটি সম্পূর্ণভাবে খোলা থাকবে। বাকিগুলোর পকেট গেট খুলে দেওয়া হবে। তবে সাধারণ মানুষের প্রবেশ ও বাহিরের ক্ষেত্রে পর্যবেক্ষণ করা হবে। দেখা হবে, অপ্রয়োজনে কেউ যেন এলাকায় প্রবেশ ও বাহির না হয়। প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় ঘোরাফেরাও নিয়ন্ত্রণ করা হবে। কারণ, এতদিন লকডাউনের কারণে করোনা কমে এসেছে। আমরা আরো দেখতে চাই, খুলে দেওয়া হলে বাড়বে কি না। তবে লকডাউন থাকবে না।

গত ৯ জুন দিবাগত রাত থেকে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারকে রেড জোন ঘোষণা করে পরীক্ষামূলকভাবে ১৪ দিনের জন‌্য লকডাউন করা হয়। ২৩ জুন লকডাউনের মেয়াদ আরো সাত দিন বাড়ানোর ঘোষণা দেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

পূর্ব রাজাবাজারে লকডাউন শুরুর পর স্থানীয় নাজনীন স্কুল অ্যান্ড কলেজে স্থাপিত নমুনা সংগ্রহ বুথে গতকাল পর্যন্ত ৩০৭ জন নমুনা দিয়েছেন। ২৭ জুন পর্যন্ত দেওয়া নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে ৫৫ জন সংক্রমিত হওয়ার তথ্য মিলেছে।

নিয়ন্ত্রণকক্ষের দায়িত্বে থাকা এক কর্মকর্তা জানান, ২৬ জুন ১০ জন এবং ২৭ জুন ৮ জন নমুনা দিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে ২৬ জুন দুইজনের এবং ২৭ জুন একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছেন। আগে যারা করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তাদের শারীরিক অবস্থা এখন ভালো।