সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

সারা বিশ্ব যখন করোনা ভাইরাসের কারণে মৃত্যুভয়ে শংকিত তখন অতিরিক্ত মুনাফার ফন্দিতে ব্যস্ত বিক্রেতারা।

বেশি দামে চাল বিক্রি করায় রাজধানীর বাবুবাজারে ১৭টি আড়তের মালিককে ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে একটি আড়ত সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২৩ মার্চ) সকাল সাড়ে ৯টায় চালের আড়তে অভিযান শুরু হয়ে সম্পন্ন হয় রাত সাড়ে ১০ টায়।

এই অভিযানের নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন র‌যাব-১০ এর উপ-অধিনায়ক মেজর শাহারিয়ার জিয়াউর রহমান।

সারওয়ার আলম বলেন, গত কয়েকদিন ধরেই সব ধরনের চালের মূল্য ঊর্ধ্বমুখী। অথচ এর কোনো যৌক্তিক কারণ নেই। যেহেতু সামর্থবান  ক্রেতারা বেশি পরিমাণ কিনে নিচ্ছেন। ফলে চাহিদা বেড়ে যাওয়ার সুযোগেই মূলত ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সোমবার রাজধানীর প্রধান আড়ত বাবুবাজারে গেলে দেখা যায় ৮ মার্চ থেকে দাম বাড়ানোর প্রবণতা শুরু হয়। তবে ১৯ মার্চ থেকে পরিকল্পিতভাবে কিছু আড়তদারের সঙ্গে যোগসাজশ করে বড় চারটি রাইসমিল চাল সরবরাহ কিছুটা কমিয়ে দেয়। এ সুযোগে আড়তদাররা কেজিপ্রতি ৪ থেকে ৫ টাকা এবং কয়েকটি  মিল মালিকেরা ১, ৫ থেকে ২ টাকা বাড়িয়ে দেয়। একইসঙ্গে খুচরা বিক্রেতারাও মনের খুশিমতো ২ থেকে ৩ টাকা বাড়িয়েছেন। ফলে সব ধরনের চালের দাম কেজিপ্রতি ৮-১০ টাকা বেড়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, এসব অপরাধে বাবুবাজারে ১৭টি আড়তে অভিযান চালিয়ে ২৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং একটি আড়ত সিলগালা করা হয়।