প্রেসার কুকারে জীবাণুমুক্ত হবে মাস্ক

11

তথ্য ও প্রযুক্তি ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

করোনা মহামারির এ সময়ে একই মাস্ক একাধিকবার ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ছে। বিশেষ করে এন৯৫ মাস্ক। কেননা এই মাস্ক ব্যয়বহুল এবং বাজারে সহজলভ্য নয়। এছাড়া অনেকে সার্জিক্যাল মাস্কও ধুয়ে পুনরায় ব্যবহার করছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের গবেষণায় বলা হয়েছে, একই মাস্ক পুনরায় ব্যবহার করতে চাইলে তা ইলেকট্রিক কুকারের মাধ্যমে সহজেই জীবাণুমুক্ত করে নেওয়া যাবে। আপনার বাসার রাইস কুকার, প্রেসার কুকার এমনকি ওভেনের মাধ্যমে।

বিজ্ঞানীরা ইলেকট্রিক প্রেসার কুকারে একটি এন৯৫ মাস্ক অন্তত ২০ বার জীবাণুমুক্ত করেছেন এবং মাস্কের গুণগত মানে কোনো হেরফের হয়নি। গবেষণায় দেখা গেছে, ইলেকট্রিক কুকারে মাস্ক রেখে ২১২ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রায় একটি কুকিং সাইকেল পূর্ণ করলে মাস্কে লেগে থাকা সার্স-কোভ-২ সহ অন্যান্য করোনাভাইরাসও দূর হয়। ৫০ মিনিটেই মাস্কের উভয় পাশের জীবাণু ধ্বংস হয়ে যায়।

বিজ্ঞানীদের মতে, কুকারের ভেতরে সবার নিচে একটা মোটা তোয়ালে রাখতে হবে। তার ওপর রাখতে হবে মাস্ক। কুকারের আকার অনুযায়ী একসঙ্গে একাধিক মাস্কও রাখা যাবে। তারপর ঢাকনা এঁটে তাপ দিতে হবে। সাধারণ মাস্কও একইভাবে জীবাণুমুক্ত করা যাবে।

বাসায় প্রেসার কুকার বা রাইস কুকার না থাকলে ওভেনের মাধ্যমেও মাস্ক জীবাণুমুক্ত করা যাবে। তবে বেশিরভাগ ওভেনে কুকারের মতো ২১২ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা সেট করা যায় না। যার মানে হলো, ওভেনে ২০০ ডিগ্রি বা ২২৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা সেট করতে হবে। তবে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করেছেন যে, ২১২ ডিগ্রির বেশি তাপমাত্রায় উত্তপ্ত করলে মাস্ক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

বিজ্ঞানীরা জানান, প্রেসার কুকার বা রাইস কুকারে মাস্ক জীবাণুমুক্ত করার সময় এতে পানি দেওয়া যাবে না।

You might also like