ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনা আর নেই

40

ক্রীড়া ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

ফুটবল কিংবদন্তি ম্যারাডোনা আর নেই। আর্জেন্টাইন গণমাধ্যমগুলো বলছে, হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা। সম্প্রতি বেশকিছু রোগে ভুগছিলেন তিনি।

এর আগে গত ২ নভেম্বর লা প্লাতার একটি ক্লিনিকে নেওয়া হয় ৬০ বছর বয়সী ম্যারাডোনাকে।

আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স এইরেস থেকে যা এক ঘণ্টার পথ।

শুরুতে ভাবা হয়েছিল, তেমন জটিল কোনো সমস্যা হয়নি তার। পরে জানা যায়, অবস্থা গুরুতর। তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। সেকারণে অস্ত্রোপচার করাতে হয় কিংবদন্তি এই ফুটবলারের। এর কিছু দিন পরে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন এ বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টিকারী এ ফুটবলার।

ম্যারাডোনাই একমাত্র খেলোয়াড় যিনি দুবার স্থানান্তর ফি এর ক্ষেত্রে বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন। প্রথমবার বার্সেলোনায় স্থানান্তরের সময় ৫ মিলিয়ন ইউরো এবং দ্বিতীয়বার নাপোলিতে স্থানান্তরের সময় ৬.৯ মিলিয়ন ইউরো। নিজের পেশাদার ক্যারিয়ারে ম্যারাডোনা আর্জেন্টিনোস জুনিয়র্স, বোকা জুনিয়র্স, বার্সেলোনা, নাপোলি, সেভিয়া এবং নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে খেলেছেন।

ক্লাব পর্যায়ে তিনি তার নাপোলিতে কাটানো সময়ের জন্য বিখ্যাত, যেখানে তিনি অসংখ্য সম্মাননা জিতেন। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আর্জেন্টিনার হয়ে তিনি ৯১ খেলায় ৩৪ গোল করেন।

তিনি চারটি ফিফা বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে ছিল ১৯৮৬ বিশ্বকাপ, যেখানে তিনি আর্জেন্টিনা দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন এবং দলকে বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেন।

প্রতিযোগিতার সেরা খেলোয়াড় হিসেবে স্বর্ণগোলক জিতেন তিনি। প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আর্জেন্টিনা ২–১ গোলে জয় লাভ করে।

আর্জেন্টিনার পক্ষে উভয় গোলই করেন ম্যারাডোনা। দুইটি গোলই ফুটবল ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে আছে দুইটি ভিন্ন কারণে। প্রথম গোলটি ছিল হ্যান্ডবল যা “হ্যান্ড অফ গড” নামে খ্যাত।

দ্বিতীয় গোলটি মারাদোনা প্রায় ৬০ মিটার দূর থেকে ড্রিবলিং করে পাঁচজন ইংরেজ ডিফেন্ডারকে পাশ কাটিয়ে করেন। ২০০২ সালে ফিফাডটকম এর ভোটাররা গোলটিকে শতাব্দীর সেরা গোল হিসাবে নির্বাচিত করে।

You might also like