সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরেও চিকিৎসা না পেয়ে অ্যাম্বুলেন্সেই আইনজীবী এবং শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে প্রগতিশীল আইনজীবী ফ্রন্ট।  একইসঙ্গে দায়ীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেন ফ্রন্টের সভাপতি অ্যাডভোকেট আখতার কবির চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম মোল্লা।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ঢাকা আইনজীবী সমিতির সদস্য সিরাজুল ইসলাম মল্লিক গত চার দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন।  শনিবার রাতে হঠাৎ পেটে সমস্যা দেখা দিলে তাকে মিরপুরের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তির চেষ্টা করেও সফল হয়নি পরিবার।  সবশেষ অ্যাম্বুলেন্সেই ওই আইনজীবীর মৃত্যু হয়। একজন মুমূর্ষু রোগীকে নিয়ে সারারাত বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে চেষ্টা করেও ভর্তি করতে না পারাটা দুঃখজনক।  একজন আইনজীবীর এমন করুণ মৃত্যু কতটা অমানবিক, যাদের অবহেলায় এ আইনজীবীর মৃত্যু হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নেতারা কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান।

নেতারা বলেন, একইভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৭ কলেজের অন্তর্ভুক্ত সরকারি কবি নজরুল কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ইসরাত জাহান উষ্ণকে শুক্রবার সকাল থেকে মাতুয়াইল শিশু মাতৃসদন হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসা দেননি।  এরপর সেই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজ (ঢঅমেক) হাসপাতালে ভর্তি না করায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়ার পথে অ্যাম্বুলেন্সেই মারা যান।  দুই হাসপাতালে সকাল থেকে ঘুরে বিকেল ৩টায় বিনা চিকিৎসায় মারা যান ওই শিক্ষার্থী।

এভাবে প্রতিনিয়ত দেশের কোথাও না কোথাও বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে বহু মানুষ। বেসরকারি এবং সরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা করাতে পারছে না সাধারণ রোগীরা। এতে করে মানুষের মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্ন হচ্ছে। মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা মতে, কোনো নাগরিক বিনা চিকিৎসায় মারা গেলে যাদের অবহেলার কারণে মৃত্যু হবে তাদেরকে ফৌজদারি অপরাধের আওতায় আনতে হবে।

তাই এই গাফিলতির জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তারা।