শিরোনাম:

আজকের রাশি। ১২ মে

উৎসব ভাতা থেকে বঞ্চিত ৭০ ভাগ সাংবাদিক

কোভিডের চিকিৎসায় আইভারমেক্টিন ব্যবহারে সতর্ক করল হু

গাড়ির কাঁচ ভেঙে বাঁচার আকুতি জানালেও কেউ এগিয়ে আসেনি

রাশিয়ার স্কুলে বন্দুক হামলা, নিহত ১১

ভিসার মেয়াদ শেষ হলে অনুমতি নিয়ে ভারত থেকে ফেরা যাবে

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : এপ্রিল ২৫, ২০২১

শেয়ার করুন

সোনারদেশ২৪: ডেস্কঃ

১৪ দিনের জন্য বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। সোমবার (২৬ এপ্রিল) থেকে কার্যকর হচ্ছে এই সিদ্ধান্ত।

এই সময়ের মধ্যে সীমান্ত দিয়ে কেউ ভারতে যেতে বা আসতে পারবে না। তবে ভারতে অবস্থান করা বাংলাদেশি নাগরিক, যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে আসছে, তারা বিশেষ অনুমতি নিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারবেন।

করোনা মহামারিতে দীর্ঘদিন বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য ভারতের ট্যুরিস্ট ভিসা বন্ধ রয়েছে। তবে চিকিৎসা ও ব্যবসার জন্য ভারতে যেতে পারছেন বাংলাদেশি নাগরিকরা। সে কারণে ভারতে প্রচুর পরিমাণে বাংলাদেশি নাগরিক অবস্থান করছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস জানান, আগামী ১৪ দিন বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত বন্ধ থাকাকালে শুধু যেসব বাংলাদেশি নাগরিকের ভিসার মেয়াদ শেষ হতে চলেছে, তারা ভারতের কলকাতা মিশন থেকে বিশেষ অনুমতি নিয়ে ও নেগেটিভ টেস্ট রিপোর্ট দেখানোসাপেক্ষে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন। এছাড়া কেউ প্রবেশ করতে পারবেন না।

সূত্র জানায়, রোববার আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সোমবার ভোর ৬টা থেকে ভারতে অবস্থানকারী কোনো বাংলাদেশি দেশে প্রবেশ করতে পারবেন না। যদিও এই মুহূর্তে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া নাগরিকদের বেশিরভাগই চিকিৎসার জন্য ভারতে অবস্থান করছেন। এর বাইরে কিছু ব্যবসায়ী রয়েছেন। তবে আগামী ১৪ দিন কেউই দেশে ফিরতে পারবেন না।

সূত্র জানায়, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের প্লেন চলাচল আগে থেকেই বন্ধ রয়েছে। লকডাউন চলাকালে শুধু পাঁচটি দেশের সঙ্গে বিশেষ ফ্লাইট চালু রয়েছে। এই ৫টি দেশ হলো- সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, ওমান ও সিঙ্গাপুর। লকডাউনে এসব দেশ থেকে প্রবাসীদের ফিরতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। তবে আগামী ২৯ এপ্রিল থেকে পুনরায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরু হতে পারে। সে সময় ভারতের সঙ্গে ফ্লাইট চালু হবে কিনা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

এর আগে গত ২২ এপ্রিল আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, লকডাউনে ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশি নাগরিকরা স্থলবন্দর দিয়ে দেশে আসতে পারবেন। তবে ফেরার পর তাদের ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। স্থানীয় প্রশাসন তাদের কোয়ারেন্টিইন নিশ্চিত করবে। তবে রোববার বাংলাদেশ সরকারের নেওয়া ১৪ দিনের সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তের পর এখন থেকে আর সেটা কার্যকর হবে না। তবে ১৪ দিন পর সীমান্ত খুলে দিলে পুনরায় এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হতে পারে।

এদিকে লকডাউন চলাকালে প্রথম দফায় ১৪-২১ এপ্রিল ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্র সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়। পরবর্তীসময়ে ২২-২৮ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন বর্ধিত করার পরিপ্রেক্ষিতে, জরুরি ভিসা ছাড়া বাংলাদেশের সব ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। এই সময়ে ভারত যেতে বাংলাদেশের নাগরিকদের জরুরি প্রয়োজনে ভিসা দেওয়ার কথা জানিয়েছিল ঢাকার ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন।

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন জানান, সোমবার থেকে দুই সপ্তাহ বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে লোকজনের যাতায়াত বন্ধ থাকবে। তবে স্থলবন্দরে পণ্য আমদানি-রপ্তানি চলবে।

ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২৭৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজার ৩১১ জনে। এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৯ হাজার মানুষ। গত ১০ দিনে দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ১০ লাখের বেশি মানুষ। প্রতিদিন মারা যাচ্ছে দুই হাজারের বেশি। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ সরকার স্থলসীমান্ত বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৪ দিনের জন্য।

পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত