শিরোনাম:

করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে ঢাকার ১৭ থানা

‘পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ থাকবে’

লকডাউনে বৃহত্তর স্বার্থে ঘরে থাকার আহ্বান কাদেরের

মিতা হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক

না.গঞ্জে সহিংসতাকারীদের ধরতে পুলিশের বিশেষ কৌশল!

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে লম্বা সুড়ঙ্গপথের সন্ধান

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশিত : জানুয়ারি ২, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সোনারদেশ২৪:

ভারতের আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার বাংলাদেশ সীমান্তে ২০০ মিটার লম্বা একটি সুড়ঙ্গপথের সন্ধান পাওয়া গেছে। এই সুড়ঙ্গপথটির একটি মুখ ভারতের আসাম রাজ্যে এবং অপর মুখটি বাংলাদেশে। এটি দুই দেশের সীমান্তের আন্তর্জাতিক চোরাকারবারি ও দুষ্কৃতকারীদের যাতায়াতের রাস্তা ছিলো বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এই সুড়ঙ্গপথটির সীমান্তের চোরাচালান, মানব পাচারের বিচরণক্ষেত্র ছিলো। আসামের করিমগঞ্জ জেলার নিলামবাজার থানা এলাকায় এই সুড়ঙ্গপথটির অবস্থান। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতের সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, গত রবিবার নিলামবাজার থানার সীমান্তের শিলুয়া গ্রামের বাসিন্দা দিলোয়ার হোসেনকে বিয়েবাড়িতে নেয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় এলিম উদ্দিন। পার্শ্ববর্তী নয়াগ্রামের এলিম উদ্দিনের বাড়ি। দিলোয়ারকে জঙ্গলের ওই সুড়ঙ্গপথ দিয়ে নিয়ে যান এলিম। এরপরই দিলোয়ারের বাড়িতে মুক্তিপণের জন্য ফোন করা হয়। ফোনে বলা হয়, দিলোয়ার হোসেনকে পেতে হলে অবিলম্বে পাঁচ লাখ টাকা দিতে হবে। আর তা এলিম উদ্দিনের কাছে দিতে হবে।

আরো বলা হয়, বাংলাদেশের একটি নম্বর থেকে ওই ফোন করা হয়। এরপরই দিলোয়ারে বড় ভাই নিলামবাজার থানায় যান। গত বুধবার অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর তদন্তে নামে পুলিশ। পুলিশের পরামর্শে দিলোয়ারের পরিবারও বারবার মুক্তিপণের টাকা কমানোর আবেদন করেন। কিন্তু তাতে রাজি হয়নি অপহরণকারীরা।

অবশেষে তদন্তে নামেন করিমগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার ময়ঙ্ক কুমার ঝাঁ। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জ্যোতি রঞ্জন দেবনাথ এবং নিলামবাজার থানার সিআই আনোয়ার হোসেনকেও সঙ্গে নেন তিনি। এর আগেই ফোনের সূত্র ধরে এলিম উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে এই সুড়ঙ্গপথের কথা জানান এলিম।

এই খবর পেয়ে দুষ্কৃতকারীরা উপায় না দেখে দিলোয়ার হোসেনকে ছেড়ে দেয়। মুক্তি পাওয়ার পর পুলিশকে সব খুলে বলেন দিলোয়ার হোসেন। সব শুনে অবাক হয়ে যায় পুলিশও। এই প্রথম তারা জঙ্গলে ২০০ মিটার লম্বা সুড়ঙ্গপথের কথা জানলেন। একেবারে জঙ্গলের মধ্যে এই সুড়ঙ্গপথের অবস্থান। আর একটু দূরেরই সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া।

এরপর পুলিশ ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে (বিএসএফ) এই গোপন সুড়ঙ্গপথের কথা জানানো হয়। তারা দ্রুত এই সুড়ঙ্গপথের ভারতীয় অংশের মুখ বন্ধ করে দেয়। আর এলিম উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়াও অতি দ্রুত এই আন্তর্জাতিক দুষ্কৃতকারীদেরও গ্রেপ্তার করা হবে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

পূর্ববর্তী সংবাদ পরবর্তী সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ
  • সর্বাধিক পঠিত